ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সিনিয়র নায়েবে আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মাদ ফয়জুল করীম শায়খে চরমোনাই বলেছেন, খাই খাই রাজনীতির কারনে কৃষক-শ্রমিক মেহনতি মানুষ ন্যায্য অধিকার বঞ্চিত রয়ে গেছে। সীমাহীন দুর্নীতি ও লুটপাটের কারণে কৃষক শ্রমিক মেহনতি মানুষ আজ অসহায়।

তিনি বলেন, আদর্শ জাতি গড়ার কারিগর শিক্ষক, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ ও মাদকমুক্ত দেশ গড়ার দায়িত্বে নিয়োজিত পুলিশ, দুর্নীতি দমনের দায়িত্বে নিয়োজিত দুর্নীতি দমন কমিশনের কর্মকর্তা যখন অপরাধের সাথে জড়িত থাকার প্রমান গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয় তখন দেশের ভবিষ্যত নিয়ে দেশবাসী সংঙ্কিত হয়। অপরদিকে গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি ও ঢাকার সড়কে রিক্সা বন্ধের সিদ্ধান্ত দেশবাসীকে বিক্ষুব্দ করে তুলেছে। এ পরিস্থিতিতে আমাদেরকেই নৈতিকতা সম্পন্ন জাতি গঠনে ভুমিকা রাখার পাশাপাশি নীতি নৈতিকতা নিয়ে সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে নিজ নিজ কর্মক্ষেত্রে কাজ করতে তিনি সকলের প্রতি আহবান জানান।

আজ বিকেলে ইসলামী শ্রমিক আন্দোলনের উদ্যোগে পুরানা পল্টনস্থ আইএবি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত মহানগর ও থানা দায়িত্বশীল তারবিয়তে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথা বলেন।

ইসলামী শ্রমিক আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সভাপতি মুহাম্মাদ আশরাফ আলী আকনের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারী জেনারেল হাফেজ মাওঃ ছিদ্দিকুর রহমান এর পরিচালনায় তারবিয়ত অনুষ্ঠানে আলোচনা করেন, ইসলামী শ্রমিক আন্দোলনের সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুর রহমান, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক মাওঃ লোকমান হোসেন জাফরী, ইসলামী শ্রমিক আন্দোলনের জয়েন্ট সেক্রেটারী জেনারেল শহিদুল ইসলাম কবির, এবিএম শেহাব উদ্দীন শেহাব, এসিস্টান্ট সেক্রেটারী জেনারেল মাওলানা আবুল কালাম আজাদ, অধ্যাপক আব্দুল করীম, আইন বিষয়ক সম্পাদক সিনিয়র আইনজিবী এ্যাডভোকেট আব্দুল বাসেত, প্রচার সম্পাদক মাওলানা সিদ্দিকুর রহমান, দপ্তর সম্পাদক মাওঃ শাহ জামাল উদ্দীন,আলহাজ্ব মোশাররফ হোসেন ও আলহাজ্ব মোঃ নজরুল ইসলাম।

সভাপতির বক্তব্যে আশরাফ আলী আকন বলেন, ইসলামী শ্রমনীতির অভাবে কৃষক-শ্রমিক মেহনতি মানুষ অধিকার হারা। শ্রমিকের অধিকার প্রতিষ্ঠায় ইসলামী শ্রমনীতি প্রতিষ্ঠায় শ্রমিকদেরকে ঐক্যবদ্ধ হতে আহবান জানান।