পানিতে ডুবে ২ জেলায় প্রাণ গেল ২ শিশুর

বগুড়ার ধুনট উপজেলা ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলায় নদী ও পুকুরের পানিতে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে। দুটি ঘটনাই ঘটেছে আজ শনিবার সকালে।

ধুনট উপজেলায় বাঙ্গালী নদীতে ডুবে সম্রাট (৯) নামের এক স্কুলছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। আজ সকাল ১০টার দিকে বাঙ্গালী নদীর পেঁচিবাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত স্কুলছাত্র সম্রাট উপজেলার পেঁচিবাড়ি গ্রামের লাল চানের ছেলে। সম্রাট পেঁচিবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র ছিল।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আজ সকাল আটটার দিকে পেঁচিবাড়ি গ্রামের সিএনজিচালক লাল চান তাঁর ছেলে সম্রাটকে নিয়ে বাঙ্গালী নদীতে মাছ ধরতে যান। একপর্যায়ে বাবার অগোচরে নদীর পানিতে ডুবে যায় সম্রাট। প্রায় দুই ঘণ্টা খোঁজাখুঁজির পর সকাল ১০টার দিকে বাঙ্গালী নদীর পেঁচিবাড়ি এলাকা থেকে ওই স্কুলছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করে স্থানীয় লোকজন।

ধুনট উপজেলা ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের ইনচার্জ আতাউর রহমান স্কুলছাত্রের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, খবর শুনে ঘটনাস্থলে যাওয়ার আগেই স্থানীয় লোকজন বাঙ্গালী নদী থেকে মরদেহটি উদ্ধার করেছে।

কসবা উপজেলার কায়েমপুর ইউনিয়নের রাজভল্লবপুর গ্রামে আজ সকালে পানিতে ডুবে ফয়সাল আহাম্মদ নামের সাড়ে তিন বছরের এক শিশু মারা গেছে।

নিহত ফয়সাল আহাম্মদ রাজভল্লবপুর গ্রামের মো. ফারুক মিয়ার ছেলে।

হাসপাতাল ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ফয়সাল আজ সকালে তাদের বাড়িতে খেলা করছিল। হঠাৎ তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে বাড়ির পাশের পুকুর থেকে তাকে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। এরপর ফয়সালকে কসবা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত্যু ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় পুরো এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

কসবা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসা সহকারী মো. মিজানুর রহমান শেখ বলেন, শিশুটি হাসপাতালে আনার আগেই মারা যায়।